President

রাস্তার প্রায় অর্ধেকটা জুড়েই থাকে সারি সারি বাস। সামনে যতদূর চোখ যায় শুধু বাস আর বাস। যেভাবে রাস্তায় একের পর এক গাড়িগুলো সাজিয়ে রাখা হয় দেখে মনে হয়, এ অনিয়মই যেন নিয়ম।

রাজধানীর মিরপুর- ১০ ও মিরপুর ১৪ ঘুরে এসব সারি সারি বাস সাজিয়ে রাখতে দেখা যায়।

রাজধানীর মিরপুর ১০ গোল চত্বর নেমে ১৪-্রএর দিকে যেতে দেখা যায়, রাস্তার অর্ধেক দখল করে থাকা সারি সারি বাস। মিরপুর- ১০ ব্রিজ থেকে ১৪-্এর দিকে কয়েক মিনিট হাঁটলেই এ দৃশ্য চোখে পড়ে।

মিরপুর ১৪-এর অবস্থাও একইরকম। মিরপুর ১৪-এর মোয়াজ্জেম চত্বর থেকে শুরু করে কয়েক মিনিট হেঁটে গেলেই রাস্তার দুই পাশেই সাজানো বাসের সারি দেখা যায়।
এই দৃশ্য দেখে যেকোন মানুষের মনে হবে- এটাই আসলে গাড়ি রাখার জন্য নির্ধারিত জায়গা। যেহেতু রাস্তার কোনো জায়গায় গাড়ি পার্ক করা যাবে এমন কোনো তথ্য লেখা নেই, তাই অবৈধভাবে বাস রাখা হয়েছে তা বোঝার উপায় নেই। আর দিনের পর দিন এভাবেই অবৈধভাবে রাস্তার অর্ধেক করে রাখা হচ্ছে এই বাসগুলো।

রাস্তায় এভাবে বাস রাখার ফলে জনগণের তীব্র ভোগান্তি হচ্ছে। আগে যখন মিরপুরে রাস্তাটা এতটা চওড়া করা হয়নি,তখন এখানে বাস রাখার মতো কোনো জায়গা ছিল না। তখন রাস্তার খুব বেহাল দশা ছিল। যার কারণে বাস রাখাও হতো না।
বর্তমানে মিরপুরের এই রাস্তায় প্রশস্ত করার পর বাস সাজিয়ে রাখা নিত্যদিনের দৃশ্য হয়ে দেখা দিয়েছে।
অার এভাবে রাস্তা দখল করে বাস রাখার কারণে প্রতিদিন সকালে এইসব বাসের কারণে রাস্তাটিতে হয় প্রচন্ড যানযট। মিরপুর ১০ থেকে মিরপুুর ১৪ এই রাস্তা সংলগ্ন রয়েছে বেশ কয়েকটি স্কুল ও হারম্যান কলেজ। ফলে শিক্ষার্থীদের গন্তব্যে পৌঁছাতে নানা বিড়ম্বনার শিকার হতে হয়। এই যানযটের কারণে তাদের পোহাতে হয় চরম দুর্ভোগ।

কথা হলো হারম্যান কলেজে অধ্যয়নরত শিক্ষার্থী সবুজের সাথে। সে জানান, “শুধুমাত্র এই জায়গাটায় এভাবে বাস পার্কিং করে রাখার জন্য আমাদের নানারকম ভোগান্তি সহ্য করতে হয়। মানুষের যাতায়াত সুবিধার জন্য রাস্তা বড় করা হয়েছে। কিন্তু তারা অবৈধভাবে গাড়ি রেখে সকালবেলা যানযট সৃষ্টি করছে।”

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক মিরপুর এলাকায় কর্মরত এক ট্রাফিক পুলিশ এ ব্যাপারে জানান, “আমাদের দেখলে সব বাস সরিয়ে ফেলে। বাস নিয়ে পালিয়ে যায় সব ড্রাইভারা। আমরা চলে গেলে কিছুক্ষণ পর আবার এখানে বাস রাখে।"

১৯ অক্টোবর, ২০১৭ ১৭:০১ পি.এম