President

প্রবাদ আছে, যেদিনটিতে আপনি হাসেননি সেদিনটিই বৃথা গেল।
মন ভালো রাখার সবচেয়ে কার্যকরী ‘ওষুধ’ হলো হাসি। তাই মন খারাপেও এক চিলতে হাসি সব দুঃখ ভুলিয়ে দিতে পারে।

এমন কোনো বন্ধুর সঙ্গে সময় কাটান যার সঙ্গে আপনি হাসতে ভালোবাসেন আর যে আপনাকে হাসাতে পারে! গবেষকরা বলছেন, শুধু মন নয়, শরীরকে সুস্থ রাখতেও সাহায্য করে প্রাণখোলা হাসি।

এছাড়াও এটি রক্তচাপকে নিয়ন্ত্রণে রাখে, রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়াতে সাহায্য করে।

চলুন জেনে নেওয়া যাক মন ভালো রাখার আরো কিছু সহজ উপায় সম্পর্কে।

সকালে ঘুম থেকে উঠে চায়ের কাপ নিয়ে কয়েক মিনিট রোদে বা জানলার ধারে গিয়ে দাঁড়াতে পারেন। এতে আপনার শরীর পর্যাপ্ত পরিমাণে ভিটামিন ‘ডি’পাবে। সূর্যালোকে এমন রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা আছে যা মানসিকভাবে সুস্থ রাখে।
শরীরচর্চাও আপনার মন ভালো রাখতে পারে। শরীরচর্চার ফলে অ্যান্ডরফিন নামক হরমোন নির্গত হয় যা মন ভালো রাখতে সাহায্য করে। এছাড়া গবেষণায় দেখা গেছে, শরীরচর্চা উদ্বেগ ও মানসিক অবসাদ কমাতেও সাহায্য করে।
হঠাৎ কোনো কারণে মন খারাপ হলে গান শুনুন। গান মানুষের মন ভালো রাখতে সাহায্য করে। আবার মিউজিকের তালে চাইলে একটু নাচতেও পারেন। পছন্দের কোনো গান শুনলে মুহূর্তেই আপনার মন ভালো হয়ে যেতে পারে। মনে পড়তে পারে সুখের কোনো স্মৃতি। গবেষণায় দেখা গেছে, গান মন ভালো রাখার পাশাপাশি মানসিক ও শারীরিক বিভিন্ন সমস্যা দূর করে।
অ্যালবামে রাখা পুরানো ছবিগুলো নেড়েচেড়ে দেখুন। এটি খুব তাড়াতাড়ি আপনার মন ভালো করে দেবে। পুরানো ছবির পিছনের গল্প যখন আপনার মনে পড়বে তখন পালিয়ে যেতে পারে সব দুঃখ।
পছন্দের কোনো ছবি ফেসবুকে পোস্ট অথবা কম্পিউটারের স্ক্রিনসেভারে রাখতে পারেন। এতে মনে নতুন উদ্দীপনা তৈরি হবে। ভালো মন নিয়ে কাজ শুরু করতে পারবেন।
লিখতে পারেন ডায়েরিতে মজার কোনো স্মৃতি। যদি নেইলপলিশ পছন্দ করেন, নখটা একটু রাঙিয়েও নিতে পারেন।
রান্নার যদি শখ থাকে তা হলে তৈরি করে ফেলুন মজার কোনো রেসিপি।

১৬ অক্টোবর, ২০১৭ ১৮:১৪ পি.এম