President

হিমোগ্লোবিন কম থাকলে, রক্তের রোগ বা ডায়াবেটিসে ভুগলে বা শরীর একের পর এক রোগের আখড়া হয়ে উঠলে নিয়মিত কলার মোচা খান। ভিটামিন, আয়রন, মিনারেলস সমৃদ্ধ মোচা শরীরে রক্তের পরিমাণ ঠিক রাখে ও রক্ত পরিষ্কার রাখে। ফলে শরীর থাকে সুস্থ ও নীরোগ।

আপনার পার্শ্ববর্তী বাজারে সারা বছর মোচা পাওয়া যায়। আয়রনে ভরপুর এ মোচা রক্তের মূল উপাদান হিমোগ্লোবিনকে শক্তিশালী করে। স্বাদে অতুলনীয় মোচার ঘণ্ট, ভর্তা, মোচার কোফতা, মোচার চপ জিভে জল এনে দেয়।

তুলনাহীন মোচার গুণাগুণ:

১. মোচা ইনফেকশন ও ঋতু বদলের যে কোনো সংক্রমণের ঝুঁকি কমায়।

২. নিয়মিত মোচা খেলে ডায়াবেটিস নিয়ন্ত্রণে থাকে।

৩. মোচার ফাইবার ও আয়রন রক্তস্বল্পতা কমাতে ও রক্ত পরিষ্কার রাখতে সাহায্য করে।
কলার মোচা ভাজি

৪. প্রচুর সলিউবল ও ইনসলিউবল ফাইবার থাকায় মোচা হজম ক্ষমতা বাড়ায় ও ওজন কমায়। এক্ষেত্রে মোচার স্যালাড ও স্যুপ খাওয়া যেতে পারে বলে বিশেষজ্ঞদের মত।

৫. গর্ভাবস্থায় প্রতিদিন মোচা খেলে স্তনদুগ্ধের পরিমাণ বাড়ে।

৬. মোচার ম্যাগনেসিয়াম অবসাদ ও উৎকণ্ঠা কাটাতে সাহায্য করে।

৭. নিয়মিত মোচা খেলে রক্তে ফ্রি র্যাদডিক্যালের সমস্যা কমে। চেহারায় বয়সের ছাপ পড়া থেকে রক্ষা করে। মোচা খেলে অ্যালঝাইমার্স এবং পারকিনসন্সেরও ঝুঁকি কমে।

৮. হলুদ, গোলমরিচ গুঁড়া ও জিরা দিয়ে মোচা সেদ্ধ করে খেলে জরায়ু সুস্থ থাকে।

৯. মোচায় রয়েছে প্রচুর ট্যানিন, ফ্ল্যাভনয়েড, অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট। তাই মোচা খেলে হার্ট ভালো থাকে।

প্রতি ১০০ গ্রাম মোচায় যে সব উপাদান রয়েছে:
১.৭ গ্রাম প্রোটিন, ৩২ মিলিগ্রাম ক্যালসিয়াম, ৫.১ গ্রাম কার্বোহাইড্রেট, ৩২ মিলিগ্রাম ফসফরাস, ১.৬ মিলিগ্রাম লোহা, ০.৭ গ্রাম ফ্যাট, ১৮৫ মিলিগ্রাম পটাসিয়াম, ০.২ মিলিগ্রাম রিবোফ্লেবিন, ৪২০ মিলিগ্রাম ভিটামিন সি, ১.৩ গ্রাম আঁশ, ০.৫ মিলিগ্রাম থায়ামিন। সূত্র: জিনিউজ।

১৬ অক্টোবর, ২০১৭ ১৮:০৪ পি.এম