President

মন খারাপ থাকলে সারা দিন বিছানা ছেড়ে উঠতে ইচ্ছাই করে না। অথবা হয়তো এক জায়গায় বসেই কাটিয়ে দিলেন সারাটা দিন। কিছুই ভাল লাগছে না। আবার এর উল্টোটাও সত্যি। অতিরিক্ত আলস্যে অবসাদ চেপে বসে। অবসাদ দূর করতে তাই নিয়মিত এক্সারসাইজ করার পরামর্শ তো গবেষকরা দিয়েই থাকেন। তবে সেই এক্সারসাইজ যে এতটা উপকারী তা এই প্রথম জানালেন তাঁরা। ব্রিটেন, অস্ট্রেলিয়া ও নরওয়ের গবেষকরা একযোগে জানাচ্ছেন, রোজ রোজ কসরত্ করে ঘাম ঝরানোর দরকার নেই। সপ্তাহে মাত্র এক ঘণ্টা এক্সারসাইজ করলেই দূরে থাকবে অবসাদ।

১৯৮৪-১৯৯৭ সালের মধ্যে নরওয়ের অধিবাসীদের নিয়ে হান্ট নামক সমীক্ষার রিপোর্ট থেকে তাঁরা জানাচ্ছেন, শারীরিক সক্রিয়তা মানসিক স্বাস্থ্য ভাল রাখতে এতটাই উপকারী যে, সপ্তাহে এক ঘণ্টা এক্সাসাইজ ভবিষ্যতে অবসাদ, উত্কণ্ঠায় ভোগার সম্ভাবনাও কমিয়ে দিতে পারে।

তবে যারা অবসাদে ভুগছেন তাদের পক্ষে কি এক্সারসাইজ করা সম্ভব? অস্ট্রেলিয়ার নিউ সাউথ ওয়েলস বিশ্ববিদ্যালয়ের ব্ল্যাক ডগ ইনস্টিটিউটের গবেষক স্যামুয়েল হার্ভে বলেন, ‘‘এক্সারসাইজ যে অবসাদের লক্ষণ কমাতে সাহায্য করে তা অনেক আগেই জানা গিয়েছিল। কিন্তু এই প্রথম আমরা নির্দিষ্ট করে বলতে পারলাম অবসাদ বা উত্কণ্ঠার সমস্যা দূরে রাখতে ঠিক কতটা শরীরচর্চা প্রয়োজন।’’

এই গবেষণার জন্য ৩৩ হাজার ৯০৮ জন অংশগ্রহণকারীর উপর ৯ থেকে ১৩ বছর সমীক্ষা চালিয়েছিলেন তাঁরা। সমীক্ষার ফল বলছে, যারা প্রতি সপ্তাহে অন্তত এক ঘণ্টা এক্সারসাইজ করেছেন তাদের তুলনায় যারা একেবারেই এক্সারসাইজ করেননি তাদের অবসাদে ভোগার ঝুঁকি অন্তত ৪৪ শতাংশ বেশি। এই বিষয়ে সতর্ক হলে ভবিষ্যতে অবসাদে ভোগার মাত্রা অন্তত ১২ শতাংশ পর্যন্ত কমানো যেতে পারে বলে আশা করছেন মনোবিদরা।

আমেরিকান জার্নাল অব সাইকিয়াট্রিতে এই গবেষণার ফল প্রকাশিত হয়েছে।

১০ অক্টোবর, ২০১৭ ১৬:২২ পি.এম